ভালোবাসার টিপস , আপনার প্রেমিকা কে সন্দেহ লাগে ? মিলিয়ে দেখুন দেখি

হ্যালো ফাজিলস, জটিল টপিক, এন্ড এই লেখা টা পড়ার পর আপনার মাথায় কুটিল চিন্তা ভাবনা জন্ম নিলে কোনভাবেই ফাজলামী ডট কম কে দোষ দেবেন না, দোষ আপনার প্রেমিকার, আমাদের নাহ।

প্রথমে আমরা কটা সহজ প্রশ্ন করবো।

১। আপনার প্রেমিকার কি নিজের একটি ফোন আছে ?

২। সে কি ফেসবুকের মত কোন সোসাল নেটোয়ার্ক এ থাকেন বা ব্যাবহার করেন ?

৩। তার কি ছেলে বন্ধুর সংখ্যা অনেক ?

 

যদি উপরের যেকোন একটি বা সবগুলো থাকে, তাহলে এই পোস্ট টা আপনার জন্যেই। অন্যান্য ব্যাপার নিয়ে আরেকদিন লিখবো।

এবার প্রশ্নের ধাপ নাম্বার ২।

১। আপনার প্রেমিকার ফোন কি প্রায় ই ওয়েটিং বা ব্যাস্ত থাকতেছে ?

২। আপনার প্রেমিকা কি ফোনে একাধিক সিম ব্যাবহার করেন ? ( জানেন তো , এখন কার ম্যাক্সিমাম সেট ডাবল সিম সাপোর্টেড )

৩। আপনার প্রেমিকার নাম্বারে কি রাতে ফোন আসে ? ( ভেবে নিজেকে বলেন,আমাকে বলতে বলি নাই )

 

হুম্ম খানিক টা ঘাপলা পাওয়া গেলো। যখন তার রাতে ফোন আসতেছে , আপনি কি তাকে জিগেস করতেছেন কার সাথে কথা বলতেছিলো ?

যদি জিগেস করেন সে কি এরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতেছে ? কোন বন্ধুর কথা বলতেছে ? বিদেশ থেকে মামা চাচা ফোন দেয়ার কথা বলতেছে ? মানলাম, আপনে মানেন না তা আমি জানি,ফাজলামি ডট কমে লিখতে বসছি বুঝেন না ।

পয়েন্টে আসেন, মেয়ে বান্ধবী আপনার ও আছে, তারে আপনি রাতে ফোন দিয়া ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলেন ? আমারে সিম্পলী বুঝান ভাই, একটা বন্ধুর সাথে আপনার কি এমন কথা থাকতে পারে । একদিন, মাসে একদিন মানা যায়, রোজ রোজ কি কথা হইতে পারে একটা ছেলের সাথে একটা মেয়ের ?

মেয়ে মানুষের মন নিয়া অনেকেই অনেক কথা বইলা গেছেন, এখন ঘাপলা হইলো আপনি আমি বলতে গেলেই কি শূনতে হচ্ছে

১। তুমি নিচু মানষিকতার

২। এত চিপ মাইন্ডেড কেন তুমি

৩। ছিহ,

৪। ছিহ তুমি এমন

৫। আমার কি স্বাধীনতা বলে কিছুই নাই ?

৬। আমি তোমাকে বলতে যাই ? তুমি বলবা কেন ?

 

ভাই সোনা আমার, যে আপনারে এখন ই এগুলা কথা শুনাইতে পারে অন্য কারো জন্য, সে আপনারে ফিউচারে কি করবে কোন ধারনা আছে ? ডাইরেক্ট অবশ্য বলবে না, বলবে কেমনে জানেন ?

১। আমি আর পারছি না

২। আমাদের আসলে একসাথে থাকা ঠিক হচ্ছে না

৩। তুমি কেমন জানি হয়ে গেছো

৪। তুমি আর আগের মত নাই

৫। তোমাকে কেমন জানি অচেনা লাগে

৬। ব্লা ব্লা ব্লা

 

আসলে হয় কি জানেন ?

প্রথম প্রথম আপনি চেষ্টা করেন তাকে ইমপ্রেস করতে, তাকে ভালো লাগা দিতে, যাতে সে আপনাকে ভালোবাসে, তো প্রেম হয়ে গেলে কমাস পর আপনার শূরুর মত অতটা না করাই স্বাভাবিক। যারা একটু নিজেদের সেপারেট রাখে সে মেয়েগুলোর জন্য এটা প্রবলেম না, তারা মানিয়ে নেয়। কিন্তু অন্য রা

আপনি শূরুতে যেমন করতেছেন, তা আপনার কাছে এখন তো পাচ্ছে না। হ্যা রে ভাই, মানলাম ভালোবাসেন আগের মত ই। শূরুতে যা যা করতেন তার জন্য তা কি করতেছেন ? ম্যাক্সিমাম ছেলে করে না, সো সেই আগের মত ফিলিং যখন অন্য ছেলে, হতে পারে তার বন্ধু, ক্লোজ ফ্রেন্ড বা ক্লাসম্যাট এর থেকে পাচ্ছে,তার দিকে ঝুকে যাওয়া টা আসলে অস্বাভাবিক না ভাইয়া।

 

যাহোক, অনেক নেগেটিভ কথা বললাম, একটু ভালো কথা বলি। টের পাচ্ছেন এমন কিছু হচ্ছে, এখন কি করবেন ?

১। ছাইরা দেন

২। মিচুয়াল করে নিয়া অপেক্ষায় থাকেন কবে আপনাকে ছাইরা দিবে

৩। তাকে ধরে রাখুন নিজের সাথে।

 

১। ছাইরা দেনঃ বুদ্ধি নাই, আপনি তাকে বুঝায় বলার চেষ্টা করছেন , নানা ভাবে বুঝাইছেন, লাভ হয় নাই, সে যা করতো করতেছেই, মানা করলে দুদিন বন্ধ রেখে আবার শূরু করছে, এক্ষেত্রে মান সম্মান নিয়ে কেটে পড়াই ভালো আপনার জন্য। মেয়ে আপনাকেই দোষ দেবে, এটা তাদের অভ্যাস, তো তাকে এই লেখা টার লিঙ্ক টা দেন, সে দেখে বাংলা পড়তে জানলে বুঝবে কেন হচ্ছে তার সাথে এটা। হ্যা আপনি তাকে ভালোবাসেন, কিন্তু সামনে আসবে এমন পরিস্থিতির কারনেই সরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

 

২। মিচুয়াল করে অপেক্ষা করেনঃ লাভ নাই, বাট আপনি ছারতে পারবেন না, এমন অবস্থায় এটা করা ছারা গতি নাই, সে যত লাত্থিগুতা দিক, আপনি সব মুখ বুজেই হজম করবেন সিদ্ধান্ত নিছেন, তাহলে করেন অপেক্ষা, বাশ আপনি খাবেন ই, আজ হোক, দুদিন পরে হোক,

 

৩। ধরে রাখুনঃ তাকে বলুন, তাকে বুঝান, এই লেখা টা দেখান, তার সমস্যা গুলো, এন্ড সমস্যা গুলো থেকে কি হতে পারে আশা করতেছি বুঝতে পারবে নিরেট মুর্খ না হলে। বলুন খোলা মাইন্ডে দেখতে , তার এক বড় জ্ঞ্যানী ! ভাইয়ার লেখা, তার পর ডিসকাস করুন আপনার একসাথে থাকতে পারবেন কিনা।

 

আচ্ছা আপু, তোমাকে বলছি।

১। তোমার লাইফে বন্ধু টা থেকে কি ভালোবাসা বড় না ?

২। তোমার বন্ধু টা সারাজীবন তোমার পাশে থাকবে না তোমার জামাই ?

৩। কাকে হারালে বেশী কষ্ট পাবা তুমি ?

ভেবে তোমার যাকে ধরে রাখা টা উচিত বলে মনে হয় তাকেই রাখো, একসাথে দুটা জীবন নিয়ে খেলা পাপ। এই পাপের দাগ গা থেকে মুছবে না আপি।

ও পারলে আমি পারবো না কেন, ছেলেদের থাকতে পারলে আমি পারবো না কেন এগুলো খুব বোকার মত প্রশ্ন হবে না বলো ? ছেলে টা রাত ২ টায় খালি গায় সিগ্রেট খেতে বের হোক, কেউ কিছু বলবে না, তুমি তা পারবা আপু ?

ছেলে টার একাধিক প্রেমিকা ছিলো বা আছে তাকে তো প্লেবয় বলে , তাই না? বিশ্বাস করবা কিনা জানি না, এই প্লেবয় দের অন্য ছেলেরা সমীহের চোখে দেখে, ইশশশ কত পায় রে ও টাইপ ভাবে। প্লে গার্ল বলে কিছু নাই আপু, একটা শব্দ ই আছে, প্রস্টিটিউট। সো প্লিজ, জলদি মাথা থেকে সব আজাইরা চিন্তা ঝেরে ফেলো, শূদ্ধ একটা লাইফ স্পেন্ড করো, তাতেই সুখ। ভোগ, আনন্দ, ইঞ্জয় এগুলোতে যা পাও সেটারে সুখ বললে প্রেমিক টা আজ নেই হয়ে গেলে রাতে কাকে ভেবে চোখের পানি ফেলবা ভাবো তো। এখন তোমার মনে হচ্ছে মেয়ে বলে ছেলে বন্ধু থাকতে পারে না ? এবার মনে মনে ভাবো সেই ছেলে বন্ধুদের মধ্য কজন তোমাকে পছন্দ করে, প্রেমিকা হিসেবে পেলে সুখি হবে, তাহলেই বুঝবা ঘাপলা টা কোথায়।

 

এতক্ষন যা পড়লেন, তার একটা লাইন সত্য হইলে, ভালো লাগলে প্লিজ সবার সাথে শেয়ার করবেন ফেসবুকে। ধন্যবাদ।